সিলেট নগরীর নোয়াগাও এলাকায় টুন্ডা সাব্বিরের রমরমা মাদক বাণিজ্য।

নভেম্বর ২০ ২০২০, ০৫:০৯

Spread the love

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ- মাদকের রাজ্যের নতুন মহলে পরিনত হচ্চে সিলেটের নগরীর প্রবীত্র মাজার গাজী বুরহান উদ্দীন রোডের নোয়াগাও সাদিপুর ৮ তলা বিল্ডিং ও তার আশপাশ।এ এলাকার পুরাতন শ্মশান মন্দির গড়ে উঠেছে মাদকের রাজ্য।নদীর পারে স্পট বানিয়ে বেচাকেনা শুরু করেছে ইয়াবা টেবলেট ও গাঁজা। সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত মাদক সেবন ও বেচাকেনা চলছে প্রকাশ্যে।

নোয়াগাও এলাকার অনেকেই জানান মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ থাকার পরেও রহস্যজনক কারণে পুলিশ তাদের গ্রেফতার করছে না। ইয়াবার কারণে ধ্বংস হচ্ছে যুবসমাজ। প্রতিদিনই বাড়ছে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা। গাজী বোরহান উদ্দিন রোডে সাদিপুর নোয়াগাও এলাকার মৃত মইনউদ্দিনের ছেলে মাদক সম্রাট টোন্ডা সাব্বির বেপরোয়া হয়ে রমরমা বানিজ্য করছে মাদকের।

তার মাদক বানিজ্যে ধংস হয়ে যাচ্ছে এলাকার যুব সমাজ।অত্র এলাকার সাধারণ জনগণের ভিতরে চাপা খোব থাকা সত্ত্বেও তার বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারছেন না।সে প্রশাসনের বিন্দু পরিমাণ পরোয়া করেনা,বরং প্রকাশ্য ঘুরে বেড়ায় এবং প্রকাশ্যে চালায় তার মাদক বানিজ্য। টোন্ডা সাব্বির সেই সাথে ব্যাবসার গন্ডি বারাতে প্রতিদিন নিজ দলে বেড়াচ্চেন নতুন নতুন মুখ। ইয়াবা ও গাজার সীমাহিন বিক্রী ও প্রকাশ্য সেবনের দূরগন্দ্ধে অতিষ্ট মেন্দিবাগ ৮ তলা বিল্ডিং ও তার আশপাশ বাসিন্দারা।

নাম প্রকাশে অনিচ্চুক এলাকার বাসিন্ধা ও ব্যাবসায়ীরা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন তা্র এসব কর্মকান্ডে ও বাহিনীর কাছে এলাকাবাসী প্রায় জিম্মি। রাতারাতি জিরো থেকে হিরো হওয়া সাব্বিরের বিরোদ্ধে এখনই ব্যাবস্তা গ্রহন করা না হলে এলাকার যুব সমাজ চরম অবনতির দিকে চলে যাবে।

এলাকাবাসী আরো বলেন তার এসব কর্মকান্ডে বেশ কয়েকবার নিষেদ করা হলেও কাউকেই পাত্তা দিচ্চেনা সাব্বির। বরং ব্যবসার গন্ডি আরো বারিয়ে রাতারাতি মটর সাইকেল ও বিপুল টাকার মালিক হয়ে চলেছে সাব্বির ওরফে ( টোন্ডা সাব্বির)। এতে প্রশাষনের প্রতি আরো বেশি ক্ষোভ বারছে জনবলে।
আগামী পর্বে বিস্তারিত থাকছে কে এই টোন্ডা সাব্বির ভিডিওসহ ..