স্মৃতি পাত্রের ধর্ষণ মামলার আসামি এখনো বুক ফুলিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে কিন্তুু প্রশাসন নীরব।

নভেম্বর ২৮ ২০২০, ১৫:৫২

Spread the love

“বাংলাদেশ হিন্দু পরিষদ সিলেট জেলা ও মহানগর নেতৃবৃন্দের গতিশীল তৎপরতায় ০৮-১০-২০১৫ ইং সালে নিখোঁজ, অপহৃত, গনধর্ষিত, স্মৃতি পাত্র (বয়স-১৬) ১৫-১১-২০ ইং তারিখে উদ্ধার ও বিমানবন্দর থানায় ধর্ষণ মামলা পক্রীয়াদিন রয়েছে।

জানাযায় ভিকটিম স্মৃতি পাত্র,পিতা মঙ্গল পাত্র গত ০৮-১০-২০১৫ ইং তারিখে সকাল আনুমানিক ০৮.৩০ ঘটিকার সময় স্মৃতি পাত্র স্কুলে যাওয়ার জন্য ঘর থেকে বের হয় কিন্তুু পরবর্তীতে স্কুলের ক্লাস শেষ হওয়ার পরেও, অনেক অপেক্ষা করে অনেক খোঁজাখোঁজির পরও স্মৃতি পাত্র কে খোঁজে না পেয়ে তার বাবা মঙ্গল পাত্র এয়ারপোর্ট থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন যার নং-৪১৮, ২০১৫ সাল। ৫ বছর ধরেই স্মৃতি পাত্র কে জোরপূর্বক আটকে রেখে দিনের পর দিন ধর্ষন করত, এয়ারপোর্টে থানা ও জালালাবাদ থানার ১।মজলিস আলী ৪৫ আকবর আলী ৪০ সাং কমলাদিঘীর পাড়,কালাগুল, থানা বিমানবন্দর ৩। ফিরোজ মিয়া ৩৫ পিতা রাজা মিয়া ৪। রাহেলা বেগম ২৫, স্বামী ফিরোজ মিয়া উভয় সাং শাহপুর থানা জালালাবাদ জেলা সিলেট। দীর্ঘ ৫ বছর ধরে গনধর্ষন করত নরপশু রা, গনধর্ষনে শারীরিক অবস্থা দিনের পর দিন খারাপের দিকে যাওয়ার কারনে ধূর্ত প্রকৃতির অপরাধীগুলো শারীরিকভাবে অত্যন্ত অসুস্থ হওয়ায় স্মৃতি পাত্র কে একটি গাড়িতে করে বাড়ির পাশের রাস্তায় ফেলে পালিয়ে যায়। গত ১৫ ,১১,২০২০ ইংরেজি তারিখে ভোরবেলা,
বাড়ীতে গিয়ে স্মৃতি পাত্র তার বাবা মঙ্গল পাত্রকে ৫ বছরের বিস্তারিত ঘটনা খুলে বলেন, এবং সিলেট এম এ জি ওসমানী হাসপাতালের ওয়ান টপ ক্রাইসিস ভর্তি করেন। এবং মঙ্গল পাএ কান্না জড়িত কন্ঠে আমাকে বিস্তারিত বলেন, আমি বিমানবন্দর থানা ওসি সাহেবের সাথে কথা বলি আমি আমার পরিচয় দিয়ে, বাংলাদেশ হিন্দু পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সভাপতি দীপক রায় বলছি , ওসি সাহেব আমাকে আসস্ত করেছেন অপরাধীদের বিরুদ্ধে মামলা রেকর্ড ভুক্ত করা হবে। অপরাধী রা খুবই দুদর্ষ ও শক্তিশালী, আরো কথা বলেছেন বাংলাদেশ হিন্দু পরিষদের বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক প্রবাল দেবনাথ অপু, বাংলাদেশ হিন্দু পরিষদ জোর দাবি জানাচ্ছে মাননীয় পুলিশ কমিশনার মহোদয় ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রতি, বিনীত অনুরোধ অবিলম্বে জড়িত সকল ধর্ষণ কারীদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা হোক।
বাংলাদেশ হিন্দু পরিষদ, বাংলাদেশ হিন্দু আইনজীবী পরিষদ সিলেট জেলা ও কেন্দ্রীয় কমিটি স্মৃতি পাএকে সকল আইনি সহযোগিতা করবে।

অনেক দিন পার হয়ে গেল স্মৃতি পাত্রের ধর্ষণ মামলার আসামি এখনো বুক ফুলিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে কিন্তুু প্রশাসন নীরব ভুমিকায়।