পৃথিবীর কথা | এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষার ফল বাতিল চাওয়া রিট খারিজ ca-pub-3266865189993050

এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষার ফল বাতিল চাওয়া রিট খারিজ

Spread the love
Advertisements
Loading...
Advertisements
Loading...

২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষার ত্রুটিপূর্ণ ফল বাতিলপূর্বক নতুন মেধাতালিকা প্রণয়ন করে মেডিকেল কলেজগুলোতে শিক্ষার্থী ভর্তির নির্দেশনা চেয়ে করা রিট আবেদনটি পর্যবেক্ষণসহ খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্ট।

আদালত তার পর্যবেক্ষণে বলেছেন, রিটকারীরা চাইলে এ বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কাছে আবেদন জানাতে পারেন।  আর তারা আবেদন জানালে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর যেন আবেদনের বিষয়টি সাত দিনের মধ্যে সুরাহা করে।

বৃহস্পতিবার বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সরদার মো. রাশেদ জাহাঙ্গীরের সমন্বয়ে গঠিত ভার্চুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।  আদালতে রিটের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন ব্যারিস্টার মোহাম্মদ হুমায়ন কবির পল্লব।

এর আগে গত ১৯ মে ফেরদাউস জাহান মারিয়াসহ ৩২৪ পরীক্ষার্থীর পক্ষে আইনজীবী মোহাম্মদ হুমায়ন কবির পল্লব এ রিট করেছিলেন।

রিট আবেদনে, স্বাস্থ্য ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব, স্বাস্থ্য ও শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ও পরিচালক এবং স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে বিবাদী করা হয়েছিল।

Loading...

রিট আবেদনে বলা হয়, ৪ এপ্রিল প্রকাশিত ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষার ফলে অসংখ্য ভুল এবং বড় ধরনের অসঙ্গতি পাওয়া গেছে।  স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের গত ৭ ফেব্রুয়ারি প্রচারিত ভর্তি পরীক্ষার নিয়মানুযায়ী একজন পরীক্ষার্থী কোনো মেডিকেল কলেজে ভর্তি থাকাবস্থায় যদি দ্বিতীয়বার ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেন, তবে তার মোট প্রাপ্ত নম্বর থেকে ৭.৫ নম্বর কাটার কথা রয়েছে।  আবার কোনো পরীক্ষার্থী যদি গত বছর এইচএসসি পরীক্ষায় পাস করে থাকেন, তা হলে তার ৫ নম্বর কাটা যাবে।

Advertisements
Loading...

কিন্তু প্রকাশিত ফলে থেকে দেখা যায়, অনেক পরীক্ষার্থীর ক্ষেত্রেই এ নিয়মটি পালন করা হয়নি।  যেসব পরীক্ষার্থীর ৭.৫ নম্বর কাটার কথা সেখানে মাত্র ৫ নম্বর বাদ দেওয়া হয়েছে।  ফলে ওইসব ভর্তি পরীক্ষার্থীর ২.৫ নম্বর বেশি দিয়ে মেধাতালিকা প্রণয়ন করা হয়েছে।  আবার প্রথমবার পরীক্ষায় যেখানে কোনো নম্বর কাটবার কথা নয়, সেখানে অনেক পরীক্ষার্থীর ৫ নম্বর কেটে মেধাতালিকা প্রণয়ন করা হয়েছে।

এসব ত্রুটি ও অসঙ্গতি রেখে মেধাতালিকা প্রণয়ন করার ফলে হাজারো যোগ্য ও মেধাবী পরীক্ষার্থী মেডিকেল কলেজগুলোতে ভর্তি হওয়া থেকে বঞ্চিত হওয়ার মুখে পড়েছেন।  এসব কারণে প্রকাশিত ফল বাতিল করে এবং এসব ত্রুটি ও অসঙ্গতি সংশোধন করে নতুন মেধাতালিকা প্রকাশের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করা হলেও দৃশ্যমান কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়নি। বরং ত্রুটিপূর্ণ মেধাতালিকার ভিত্তিতেই মেডিকেল কলেজগুলোতে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে আগামী ২২ মে থেকে স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তর ভর্তি কার্যক্রম শুরু করতে যাচ্ছে।

প্রসঙ্গত এর আগে এক আইনি নোটিশে তিন দিনের মধ্যে স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তর কর্তৃক ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে ত্রুটিপূর্ণ মেধাতালিকার ভিত্তিতে ভর্তি কার্যক্রম স্থগিত করা এবং ত্রুটিপূর্ণ মেধাতালিকা বাতিল করে ফল পুনঃনিরীক্ষণ করে নতুন মেধাতালিকা প্রণয়ন করতে বলা হয়েছিল।  কিন্তু সে নোটিশের জবাব না পাওয়ায় রিট করা হয়।

সুত্রঃ যুগান্তর