পৃথিবীর কথা | লকডাউনের ২ দিনে গোলাপগঞ্জের করোনায় আক্রান্ত ১০ জন ca-pub-3266865189993050

লকডাউনের ২ দিনে গোলাপগঞ্জের করোনায় আক্রান্ত ১০ জন

Spread the love
Advertisements
Loading...
Advertisements
Loading...

লকডাউনের ১৪ দিনে গোলাপগঞ্জের ২ ইউনিয়ন ব্যতীত বাকি ৯ ইউনিয়ন ও পৌরসভায় ৩৫ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এর মধ্যে গত ২দিনে ২২টি নমুনার মধ্যে শনাক্ত হয়েছেন ১০ জন। উপজেলার শরীফগঞ্জ ইউনিয়ন ও পশ্চিম আমুড়া ইউনিয়ন এখনও করোনা মুক্ত রয়েছে।

এদিকে প্রতিদিন উপজেলায় করোনা রোগী বাড়লেও বাড়ছে না মানুষের মধ্যে সচেতনতা। কঠোর লকডাউনের মধ্যেও মানুষ বাইরে বের হচ্ছেন। গত ২/৩ দিন থেকে বাইরে মানুষের উপস্থিত বাড়তে শুরু করেছে। প্রতিটি ঘরে ঘরে রয়েছে জ্বর-সর্দির প্রকোপ। ৩ লক্ষ মানুষের উপজেলায় প্রতিদিন করোনা পরীক্ষা করাচ্ছেন ১৫ জনেরও কম। যার থেকে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেরিয়ে আসছে ২/৩ জন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়, এখন পর্যন্ত উপজেলায় নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ২ হাজার ৯৩৪ টি। করোনা শনাক্ত হয়েছেন ৫৪৮ জন। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৪৯৭ জন। করোনা মৃত্যু বরণ করেছেন ১৬ জন। আইসোলেশনে আছেন ৩৫ জন।

Loading...

এদিকে গত ২৭ জুন থেকে উপজেলায় এখন পর্যন্ত ৩৫ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এর মধ্যে পৌরসভায় ৬ জন, সদর ইউনিয়নে ২ জন, ঢাকাদক্ষিণে ইউনিয়নে ৯ জন, লক্ষণাবন্দ ইউনিয়নে ৭ জন, বুধবারীবাজার ইউনিয়নে ২জন , ভাদেশ্বর ইউনিয়নে ৩ জন, বাদেপাশা ইউনিয়নে ২ জন, লক্ষীপাশা ইউনিয়নে ১ জন, বাঘা ইউনিয়নে ২ জন, ফুলবাড়ি ইউনিয়নে ১ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন।

Advertisements
Loading...

গোলাপগঞ্জ উপজেলা আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. শাহীনুর ইসলাম শাহিন বলেন, দেশ জুড়ে প্রতিদিন বাড়ছে করোনায় আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। গোলাপগঞ্জে গত দুইদিনে ২২ টি নমুনা পরীক্ষায় পজিটিভ এসেছে ১০টি। যা উপজেলা বাসীর জন্য মোটেই সুখকর নয়।

তিনি বলেন, এখনও সময় আছে সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। যাদের শরীরে করোনার উপসর্গ রয়েছে তাদেরকে হাসপাতালে এসে করোনা পরীক্ষা করানোর জন্য অনুরোধ জানান তিনি।

সর্বশেষ নিউজ